যা জীবনবৃত্তান্তে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত নয়

একজন নিয়োগকারি কর্মকর্তা গড়ে ৭৫টি জীবনবৃত্তান্ত পান তাদের প্রকাশিত প্রতিটি পদের জন্য, ক্যারিয়ার বিল্ডার ডট কম এর তথ্য মতে। তাই তাদের পর্যাপ্ত সময় এবং সম্পদ কোনোটিই নেই প্রতিটি জীবনবৃত্তান্ত ভালভাবে যাচাইয়ের, এবং তারা মাত্র ছয় সেকেন্ড ব্যয় করেন “উপযুক্ত/উপযুক্ত নয়”, এই প্রাথমিক সিদ্ধান্তটি নিতে।

Continue reading

Advertisements

চাকুরী আর আমাদের দুশ্চিন্তা


🎓

চাকরি পাচ্ছেন না এই দুশ্চিন্তায় আপনার পড়ালেখাও হচ্ছেনা। হয়তো অনেকগুলো এক্সাম দিয়েছেন কিন্তু কোনটাতেই চূড়ান্ত তালিকায় নেই। কোনটায় প্রিলি ফেল নয়তো লিখিত ফেল নয়তো ভাইভায়। এভাবে কেটেছে অনেক মাস বা কয়েক বছর। এভাবে বারবার এক্সাম দিয়েও জব না পেয়ে আপনি হতাশ, এই জন্য জবের জন্য প্রয়োজনীয় পড়াটাও হচ্ছেনা, তাইনা???

ওকে, বুঝলাম। আপনি অনেক ভাল পরীক্ষা দিয়েও জব পাচ্ছেন না। তাহলে চুপচাপ ভাবুনতো কেন জব পাচ্ছেন না। কেউনা কেউ ঠিকই চাকরি পাচ্ছেন।আপনার কোথাও না কোথাও লেকিংস আছে। সেটা খুঁজে বের করুন। এরপর সেইটার উপর জোর দিন। পরীক্ষার হলে আপনার ম্যাচুরিটি শো করুন। টু দা পয়েন্টে উত্তর লিখুন।উত্তর গুছিয়ে লিখুন। সময়ের দিকে খেয়াল রাখুন। সঠিক ভাবে উত্তর লিখুন। নিজের প্রতি আত্ববিশ্বাস রাখুন। মনে করুন আপনার লিখাটাই বেষ্ট।

আচ্ছা, আপনি কি সারাজীবন বেকার থাকবেন? জ্বি না। আপনার কোথাও না কোথাও জব হবে। জব হবেই তবে হয়তো মনের মত হবেনা কিন্তু জব যে একটা হবে এটা নিশ্চিত। তাই চিন্তা বাদ দিন। মনে মনে ভাবুন একদিন ঠিক ই জব হবে। তাই টেনশন নিয়েন না। বর্তমান সময়টাকে কাজে লাগান। নিখুঁত ভাবে পড়ুন। চাকরি হচ্ছেনা এই চিন্তা করে পড়ার সময় নষ্ট করার কোন মানে হয়না। এগিয়ে যান। উপরওয়ালা আপনার জন্য কিছু না কিছু অবশ্যই রেখেছেন। হয়তো একটু সময় লাগবে এই আর কি। তাই বর্তমান সময়টাকে কাজে লাগান। ভাল প্রস্তুতি নিন।

তাই আপনারও একদিন জব হবে তবে সেটা নির্ভর করছে আপনি বর্তমান সময়টা কিভাবে ব্যয় করছেন তার উপর। আপনি চিরকাল বেকার থাকবেন না। একটা না একটা জব হবেই। তাই হতাশ না হয়ে প্রস্তুতি চালিয়ে যান। তবে অবশ্যই সঠিক পথেই প্রস্তুতি নিবেন।

আর একটা কথা- জবের প্রস্তুতির পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবে কিছু করার চেষ্টা করুন। বিধাতা কোন দিক দিয়ে আপনাকে সফলতা দিবে সেটা আপনিও জানেননা। নিজের পায়ে দাঁড়ানোর অপশন বাড়ান। নিজেকে নিয়ে ভাবুন। কোন কোন পথে আগাবেন সেটা চিন্তা করুন। এখন থেকে আবার নব উদ্যমে শুরু করুন। ইনশাআল্লাহ একদিন সফলতা আসবেই। শুভ কামনা আপনার জন্য।

“পিএইচডি ফোকাস “

—পিএইচডি’র ফোকাস— অনেকেরই একটা প্রশ্ন থাকে, পিএইচডি’র সময় কী ফোকাস করবে? —কীভাবে ফোকাস করবে? —কোন বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিলে ভবিষ্যতের পথ সহজ হবে? <!–more–> পিএইচডি হলো একটা ট্রেনিং। এই ট্রেনিংয়ের কিছু গুরুত্বপূর্ণ দিক থাকে। সে দিকগুলো একজন স্টুডেন্ট যতো ভালোভাবে রপ্ত করতে পারে, ততোই তার জন্য ভবিষ্যত সহজ হয়। বেশিরভাগ ছেলে-মেয়ে পিএইচডি শুরু করে শুধু পাবলিকেশনের … Continue reading

স্যুট পরার ২৭ টি পরীক্ষিত ড্রেস কোড

স্যুট! পুরুষের প্রথম পছন্দ বিজ্ঞাপনের মতো এই লাইন শুনে হয়তো হাসবেন কিন্তু বাস্তবতা একটু ভিন্ন। আত্মবিশ্বাসী পুরুষের প্রথম এবং একমাত্র পছন্দ স্যুট। স্যুট এমন পোশাক যে আপনি অফিসমিটিংঅনুষ্ঠান এমনকি শপিং যেতেও পরতে পারেন। শীতে কাঁপছেন কিংবা গরমে ঘামছেন আর না হলে বসন্তের মৃদুমন্দ বাতাসে ভেসে যাচ্ছেন সব সময় বিভিন্ন ভাবে আপনি স্যুট পরতে পারেন। এখন কথা হচ্ছে

Continue reading

“CV”

প্রথম দর্শনেই প্রেম বলে একটা কথা আছে। আপনার সিভি দেখে আপনার চাকরিদাতা আপনার প্রেমে পড়ে যাবে না সেটা নিশ্চিত থাকুন। তবে ফার্স্ট ইমপ্রেশন তৈরি করতে যে সাহায্য করবে সেটা নিয়ে সন্দেহের কোনও অবকাশ নেই। সিভি বানানোর আগে যেসব বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে রিডার্স ডাইজেস্ট অবলম্বনে জানবো আজ।

<!–more–>

১. আপনার চাকরিজীবনের ধারাবাহিকতায় দেখা গেল ছয় মাস আপনি বেকার ছিলেন, এই ধরনের গ্যাপ প্রতিষ্ঠানের মানবসম্পদ বিভাগ পছন্দ করে না। তাই সিভিতে এই বিষয়গুলো এড়িয়ে চলুন।

২. আপনি যে বিষয়ে পড়াশুনা করলেন কিংবা আপনার অভিজ্ঞতা কতটুকু ভাল সেগুলো তেমন গুরুত্বপূর্ণ নয়। বরং আপনার চাকরিদাতা দেখবে আপনার নেটওয়ার্কিংয়ের ক্ষমতা কতটুকু।

৩. আপনার ইমেইল ঠিকানার মাধ্যমে আপনার ব্যক্তিত্ব অনেকটাই বোঝা যায়। তাই খেয়াল রাখতে হবে উদ্ভট কিংবা অশালীন অর্থ বহন করে এইরকম কোনও ইমেইল আইডি সিভিতে দেবেন না।

৪. আপনার বয়স যদি ৫০ কিংবা ৬০ হয়, কিংবা কোনও সিনিয়র পোস্টে চাকরির আবেদনের ক্ষেত্রে আপনার এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষার তথ্য সিভিতে দিতে যাবেন না।

৫. আপনার সিভিতে সবচেয়ে বেশি জায়গা ব্যবহার করবেন আপনার অভিজ্ঞতার বিবরণ দিয়ে। কারণ আপনার চাকরিদাতা এই অংশটিই সবচেয়ে খুটিয়ে পড়েন।

৬. যে চাকরির জন্য আবেদন করছেন সে চাকরির সঙ্গে মিলিয়ে সিভি বানান। একই সিভি সব জায়গায় জমা দেবেন না।

৭. চাকরিজীবন শুরু করতে যাচ্ছেন? তাহলে সিভি বানাবেন এ ফোর সাইজের এক পাতায় আর সিনিয়র হলে দুই পাতায়। এর বেশী কখনোই নয়।

আইবিএ(ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) প্রস্তুতি

কিভাবে পড়তে হবে আইবিএর জন্য by Achilice Barnad, MBA-IBA(DU), BBA & MBA(CU).

অনেকেই আছেন যারা আমার মত দুর্বল ছাত্র কিন্তু প্রস্তুতি নিতে চাচ্ছেন, কিন্তু ভয় পাচ্ছেন। দেখুন ভাই IBA প্রস্তুতি কিন্তু এমন কিছু না যে খুব মেধাবী না হলে হবে না। তবে হ্যাঁ patience level বেশি হতে হবে। আর সবথেকে জরুরী জিনিস হলো- আপনি যদি সঠিকভাবে না শুরু করেন তাহলে প্রচুর পরিশ্রম করেও আপনি সফল হতে পারবেন না। তাই শুরু করার আগে আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে- আপনি

Continue reading